বেলকুচিতে তৃতীয় দিনেও ডিমেতালে চলছে লকডাউন 
০৭ মে, ২০২১ ০৬:২২ পূর্বাহ্ন

  

বেলকুচিতে তৃতীয় দিনেও ডিমেতালে চলছে লকডাউন 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বেলকুচি
১৬-০৪-২০২১ ০৪:৪৪ অপরাহ্ন
বেলকুচিতে তৃতীয় দিনেও ডিমেতালে চলছে লকডাউন 
সারাদেশে প্রতিনিয়ত বাড়ছে বৈষ্যিক করোনার আগ্রাসন। পরিস্থিতি অবনতির কারণে সারা দেশের ন্যায় ২য় ধাপের তৃতীয় দিনেও সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে ডিমেতালে চলছে লকডাউন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তারা শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) তৃতীয় দিনের লকডাউন বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ে থেকে জনসচেতনতা তৈরিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করলেও সাধারণ মানুষ এখনও উদাসীন। বেলকুচির সাধারণ মানুষ মানছেন না সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক পরিধানসহ ১৮ নির্দেশনা। সড়ক পথে গণপরিবহনের অবাধ চলাচল লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সিএনজি চালক শরিফ বলেন, আমরা কি করবো পেটের দায়ে গাড়ি নিয়ে রাস্তায় বাহির হয়েছি, করোনা সুদু আমাদের পরিবহন শ্রমিক দের জন্য, গাড়ি বন্ধ রাখলে করোনা ভাইরাস হবেনা, গার্মেন্টস, কল কারখানা খোলা হাজার হাজার শ্রমিক কাজ করে এক সঙ্গে সেই খানে করোনা হওয়ার আশঙ্কা নাই আমারা গাড়ি নিয়ে বাহির হলে করোনা হবে। ভ্যান চালক অলি এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, আমরা গাড়ি নিয়ে বাহির আসবোনা কি করবো? আমার ঘরে খাবার নাই, সরকারের কোনো সহায়তা পাইনা, কোন চেয়ারম্যান মেম্বার আমাদের কোন ধরনের সহযোগিতা করেনা। আমরা ভ্যান শ্রমিক সারাদিন গাড়ি চালিয়ে যে টাকা উপার্জন করি সে টাকা দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। অনেকাংশে বন্ধ রয়েছে অত্র এলাকার  দোকানপাট, দোকান মালিক আওয়াল জানান, আমাদের দোকান বন্ধ রাখতে বলেছে বন্ধ করে  রেখেছি, হাট বাজারে গেলে মানুষের ভির সেখানে সামাজিক দূরত্ব দেখা যায়না। বিকাল থেকে ইফতার কেনার জন্য মানুষের ভিড় পরে। মানছেন না সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক পরিধান নাই কঠোর লকডাউন কেউ দেখছি মানছে না, শুধু আমাদের কিছু দোকানদারদের জন্য সরকার লকডাউনে রেখেছে।  বেলকুচি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোফাখখারুল ইসলাম জানান, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সারা পৃথিবীতে ভয় ও আতংকের পরিবেশ তৈরি হয়েছে। স্থবির হয়ে পরেছে সামগ্রিক অর্থনীতি। বেলকুচি উপজেলা মোট ৬জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। সামনে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেশি দেখাদিবে এমনটাই মনেকরা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, খাবারের আগে ও পরে, হাঁচি কাশির পর বা হাত ময়লা হলে সাবান পানি দিয়ে ধুতে হবে। গণপরিবহন বা জনবহুল স্থানে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। জনসস্মুখে হাঁচি কাশিতে টিস্যু ব্যবহার করতে হবে, এখন থেকে জনসচেতন না হলে সামনে আরও ভয়াবহ দিনের আশঙ্কার ধারণা করা হচ্ছে। 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বেলকুচি ১৬-০৪-২০২১ ০৪:৪৪ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে
এবং 165 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
Loading...
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত

  

  ঠিকানা :   অনামিকা কনকর্ড টাওয়ার, বেগম রোকেয়া স্মরনী, তৃতীয় তলা, শেওড়াপাড়া, মিরপুর, ঢাকা- ১২১৬
  মোবাইল :   ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
  ইমেল :   [email protected]